দুলাল মিত্রের তৃতীয় প্রয়াণ দিবসে Dr. B C Roy Engineering College and Group of Institutions এর শ্রদ্ধাজ্ঞাপন

gif of bc royআমাদের ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করে রাখুন বিভিন্ন আপডেট পাওয়ার জন্য।

দুর্গাপুর দর্পণ, দুর্গাপুরঃ Dr. B C Roy Engineering College and Group of Institutions এর সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি দুলাল মিত্রের তৃতীয় প্রয়াণ বার্ষিকীতে শুক্রবার শ্রদ্ধাজ্ঞাপন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কলেজের ফুলঝোড় এবং বিধাননগর, দুই ক্যাম্পাসেই দিনটি পালিত হয় অত্যন্ত ভাবগম্ভীর পরিবেশে। কলেজের প্রায় সবাই কলেজের অগ্রগতিতে দুলালবাবুর অবদান স্মরণ করেন। কেউ কেউ আবার তাঁদের ব্যক্তিগত জীবনে দুলালবাবুর ভূমিকার কথা স্মরণ করে স্মৃতিমেদুর হয়ে পড়েন। অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন কলেজের ফ্যাকাল্টি ও কর্মীরা।

কয়েকজন তরুণ উদ্যোগপতিকে সঙ্গে নিয়ে দুলাল মিত্র Dr. B C Roy Engineering College and Group of Institutions গড়তে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়েছিলেন। কলেজকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে তাঁর অবদান অনস্বীকার্য। ২১ বছর আগে শুরু হয়েছিল যাত্রা। আজ, দেশের প্রধান টেকনিক্যাল এবং ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠানগুলির মধ্যে অন্যতম হল Dr. B C Roy Engineering College and Group of Institutions । সারা বিশ্বে এই প্রতিষ্ঠানের নাম ছড়িয়ে পড়েছে।

Dr.B C Roy Engineering College (BCREC), Dr.B C Roy Engineering College –Academy of Professional Courses(APC), Dr.B C.Roy College of Pharmacy and AHS (BCRCP) এবং Dr. B C.Roy Polytechnic (BCRP)। চারটি কলেজেরই কর্তৃপক্ষ, ফ্যাকাল্টি, কর্মীরা শুক্রবার দুলালবাবুর প্রতি পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। শ্রদ্ধা নিবেদন করেন BCREC Group এর Treasurer জার্নেল সিং।

আরও পড়ুন- আইআইটি, এনআইটির মতো ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের পড়ুয়াদেরও পেড ইন্টার্নশিপ দেবে এনএইচএআই

BCREC Group এর জেনারেল সেক্রেটারি তরুণ ভট্টাচার্য গ্রুপের চারটি কলেজের খ্যাতি আরও ছড়িয়ে দিতে ফ্যাকাল্টিদের উচ্চ মানের টেকনিক্যাল রিসার্চ পেপার প্রকাশ এবং কলেজের পড়ুয়াদের যুক্ত করে গুরুত্বপূর্ণ সায়েন্টিফিক প্রজেক্টস তৈরির পরামর্শ দেন। এতে অভিভাবকেরা আরও বেশি বেশি করে BCREC group এর কলেজে ছেলে-মেয়েদের পাঠাতে উৎসাহী হবেন বলে জানান তিনি। BCREC এর ডিরেক্টর অধ্যাপক ডঃ পীযূষ পাল রায় তাঁর বক্তব্যে ফ্যাকাল্টিদের ছাত্র-ছাত্রী ও প্রতিষ্ঠানের স্বার্থে আরও বেশি নিয়োজিত হওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘‘এর মাধ্যমেই দূরদর্শী সেই মানুষটির প্রতি আমরা প্রকৃত শ্রদ্ধা জানাতে পারব।’’

BCREC-APC এর প্রিন্সিপ্যাল অধ্যাপক ডঃ অরুণাভা মুখোপাধ্যায় দুলালবাবুর স্মৃতিচারণ করে কিভাবে তিনি বাকিদের উদ্বুদ্ধ করে তুলতেন তা উল্লেখ করেন। BCRCP এর ডিরেক্টর অধ্যাপক ডঃ সুব্রত চক্রবর্তী, BCRP এর প্রিন্সিপ্যাল অধ্যাপক ডঃ চন্দন কুমার ঘোষ দুলালবাবুর উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করে তাঁদের বক্তব্যে দুলালবাবুর কালোত্তীর্ণ অবদানের কথা স্মরণ করেন। BCRCP এর প্রিন্সিপ্যাল অধ্যাপক ডঃ শুভব্রত রায় তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘‘দুলালবাবু কখনও গুণমানের সঙ্গে আপোষ করতেন না। ভীষণই পারফেকশনে বিশ্বাসী ছিলেন। তাঁর এই গুণাবলী আমাদের কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে সাহায্য করেছে।’’

আরও পড়ুন-করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে সামিল ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ অ্যান্ড গ্রুপ অফ ইনস্টিটিউশন

Head (Admin) ডঃ অলোক কাহালি বলেন, ‘‘দুলালবাবুর উৎসাহেই আমার Ph.D সম্পূর্ণ হয়।’’ প্রতিষ্ঠানের Chief of Corporate Affairs অমিতাভ চক্রবর্তী প্রায় ১২ বছর দুলালবাবুর সঙ্গে কাজ করেছেন। তিনি বলেন, ‘‘সফল প্রতিষ্ঠান তৈরি করার চাবিকাঠি ছিল দুলালবাবুর DNA-তেই। তাঁর বাবা বীরভূমের বহু গুরুত্বপূর্ণ প্রজেক্ট রূপায়িত করেছিলেন।’’ টেকনোলজি ও ম্যানেজমেন্টের বিখ্যাত অ্যাকাডেমেশিয়ানদের নিয়ে এসে বার্ষিক দুলাল মিত্র স্মারক বর্ক্তৃতা আয়োজন করার প্রস্তাব দেন অমিতাভবাবু। এতে যেমন কলেজ উপকৃত হবে তেমনই দুলালবাবুর প্রতি উপযুক্ত শ্রদ্ধা প্রদর্শণ করা হবে বলে মনে করেন তিনি।

 

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: