কেন দল-মত-রাজনীতির উর্ধে উঠে শ্রমিকদের পাশে থাকার ‘বিতর্কিত’ বার্তা দিলেন বিশ্বনাথ পাড়িয়াল? জল্পনা

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করে রাখুন বিভিন্ন আপডেট পাওয়ার জন্য।

দুর্গাপুর দর্পণ, দুর্গাপুরঃ ট্রেড ইউনিয়ন নিয়ে দলের সঙ্গে মতান্তর বিশ্বনাথ পাড়িয়ালের দিন দিন যেন বেড়েই চলেছে। সগড়ভাঙার বেসরকারি গ্রাফাইট কারখানায় স্থানীয়দের নিয়োগের দাবিতে মিছিলের সময় কারখানার গেটে পুলিশ ও কমব্যাট ফোর্স দেখে ফের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন দুর্গাপুর পশ্চিমের এই বিধায়ক।

দেখুন কি বলছেন বিধায়ক

গ্রাফাইট কারখানায় স্থানীয়দের নিয়োগের দাবিতে মাঝে মাঝেই মিছিল বের হয়। বিশ্বনাথবাবু নিজেও বরাবর স্থানীয়দের নিয়োগের ব্যাপারে সরব। তাঁর অভিযোগ, দলের একাংশের মদতে কয়েকজন কারখানা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগসাজস করে অর্থের বিনিময়ে বাইরে থেকে লোক এনে কারখানায় নিয়োগ করে পকেট ভরছেন বছরের পর বছর।

সম্প্রতি স্থানীয়দের নিয়োগের দাবিতে মিছিল বের করেছিল তৃণমূল ও আইএনটিটিইউসি।  ছিলেন দলের ব্লক সভাপতি শিপুল সাহা, মেয়র পারিষদ অঙ্কিতা চৌধুরী, কাউন্সিলর সুনীল চ্যাটার্জীরা। মিছিল আসবে বলে আগে থেকে কারখানার সামনে পুলিশের বিশাল বাহিনী রাখা হয়। যদিও কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হয়নি।

কিন্তু এই ঘটনায় ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন বিশ্বনাথ পাড়িয়াল। তিনি বলেন, এটা খুবই লজ্জ্বার যে শ্রমিকদের নায্য দাবি আদায়ের মিছিল আটকাতে পুলিশ প্রশাসনকে ব্যবহার করা হচ্ছে। কিন্তু এভাবে দুনিয়ার কোথাও ট্রেড ইউনিয়নকে দমিয়ে রাখা যায়নি। দুর্গাপুরেও যাবে না। শ্রমিকদের নায্য দাবির পাশে আমি দল-মত-রাজনীতির উর্ধে উঠে বরাবর পাশে থেকেছি। ভবিষ্যতও  থাকবো। কারণ, শ্রমিকরাই আমার ভরসা।

আরও পড়ুন- তৃণমূল নেতাদের মদতেই চলছে অবৈধ বালির কারবার, তোপ বিধায়কের

বিশ্বনাথবাবু মাঝে মাঝেই বেসুরো কথা বলেন। কিন্তু এবার শ্রমিকদের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিতে গিয়ে  কেন তিনি হঠাৎ দল-মত-রাজনীতির উর্ধে ওঠার কথা বললেন তা নিয়ে দলের অন্দরে শুরু হয়েছে চর্চা। দলের একাংশের মতে, তৃণমূল ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দিয়ে বিধায়ক হয়ে ফের তৃণমূলের ফেরা এবং অন্যান্য কিছু কারণে অনেকেই ভরসা হারিয়েছেন বিধায়কের প্রতি। আস্থা ফিরে পেতে তাই দল-মত-রাজনীতির উর্ধে উঠে শ্রমিকদের পাশে থাকার বার্তা দিয়ে পরিস্থিতি নিজের অনুকূলে আনার চেষ্টা করছেন।

তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া দুর্গাপুরের কাউন্সিলর চন্দ্রশেখর বন্দ্যোপাধ্যায় অবশ্য বলেন, সাড়ে নয় বছর ধরে আমাদের মতো তরুণ প্রজন্ম শিল্প হবে সেই আশায় ছিলাম। একটাও শিল্প হয়নি। তার উপরে ট্রেড ইউনিয়ন নিয়ে দুর্গাপুরে শাসক দলের এই রোজকার দ্বন্দ্ব শিল্পের পরিবেশ আরও শেষ করে দিয়েছে। রাজ্যে বিজেপির নতুন সরকার এসে শিল্পায়ন করবে।

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

One thought on “কেন দল-মত-রাজনীতির উর্ধে উঠে শ্রমিকদের পাশে থাকার ‘বিতর্কিত’ বার্তা দিলেন বিশ্বনাথ পাড়িয়াল? জল্পনা

  • January 22, 2021 at 1:23 PM
    Permalink

    लड़ाई किसके साथ है manegmement या खुद अपने साथ राज्य सरकार बीच में आना जरूरी है

    Reply

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: