করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অণ্ডালের অতন্দ্র প্রহরী অ্যামিস

করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অণ্ডালের অতন্দ্র প্রহরী অ্যামিস। ফরাসি ভাষায় অ্যামিসের অর্থ হল বন্ধুরা।

পাঁচজন কোভিড জয়ী সহ পুলিশ, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা, প্রশাসনের মোট ৫০ জনকে নিয়ে অণ্ডালে গড়ে উঠেছে অ্যামিস। নেপথ্যে রয়েছেন অণ্ডালের বিডিও ঋত্বিক হাজরা। টিমের কেউ ব্যক্তিগত পরিচয় নিয়ে কাজ করতে চান না, তাঁরা চান, সবাই তাঁদের অ্যামিস নামেই চিনুন! টিম-ওয়ার্কে বিশ্বাসী তাঁরা।

করোনার বিরুদ্ধে সচেতনতা গড়তে বন্ধুর মতোই তাঁরা রয়েছেন সাধারণের পাশে। কোভিড সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি থাকলে তা দূর করা, নমুনা পরীক্ষা করতে অনীহা থাকলে তা দূর করা, কেউ অসুস্থ হলে তাঁর নমুনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করা, চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেওয়া সহ নানা ভাবে তাঁরা মানুষের পাশে থাকছেন। কেউ খাবার না পেলে বাড়িতে খাবার পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। প্রতিটি পঞ্চায়েত এলাকা থেকে একজন পুরুষ এবং একজন মহিলা, মোট দু-জনকে ঠিক করা হয়েছে। তাঁরা খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন। কোনও এলাকা স্যানিটাইজড করার দরকার হলে পিপিই পড়ে নেমে পড়ছেন নিজেরাই।

অ্যামিজের সদস্যরা ব্যস্ত স্যানিটাইজেশনে

ফোন নম্বর দেওয়া হয়েছে। কেউ অসুস্থ হয়ে পড়লে বা আশপাশে সংক্রমণ হলে বাজারে যেতে পারেন না। তাঁরা সেই ফোন নম্বরে ফোন করলে বাজার পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। প্রতিটি এলাকা ধরে টিমের সদস্যদের রাখা হচ্ছে। খবর পাওয়ার পরে গড়ে ৫ মিনিটের মধ্যে তাঁরা সেখানে পৌঁছে যাচ্ছেন।

সচেতন করতে ট্যাবলো বের হয়েছে। পাশাপাশি, এক একজনের মনস্তাত্বিক দৃষ্টিভঙ্গী এক এক রকম। সেকথা মাথায় রেখে ব্রহ্মা, বিষ্ণু, মহেশ্বর সেজে সচেতনতা গড়ছেন তাঁরা। ভগবানের রূপ ধরে এসে বার্তা দিলে হয়তো কারওর মনে তা গেঁথে যেতে পারে যা সাধারণ ভাবে কেউ বললে হয়তো তিনি সে বিষয়টাকে গুরুত্ব দিতেন না।

বিডিও ঋত্বিক হাজরা বলেন, সরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি নানা ভাবে কোভিডের বিরুদ্ধে লড়াই ও সচেতনতা গড়ে তোলার প্রয়াস চলছে। অণ্ডালের বাসিন্দারা সাধ্যমতো এগিয়ে এসেছেন।

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: