দাবি পূরণে বিধায়কের হাতে স্মারকলিপি

পশ্চিমবঙ্গ প্রাণীসম্পদ বিকাশকর্মী ইউনিয়নের পুরুলিয়া জেলা কমিটির পক্ষ থেকে মঙ্গলবার বান্দোয়ানের বিধায়ক রাজীবলোচন সোরেন এর কাছে স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

পাঁচ দফা দাবিতে স্মারকলিপি দেওয়া হয় এদিন। পশ্চিমবঙ্গ প্রাণীসম্পদ বিকাশকর্মী ইউনিয়নের রাজ্য সম্পাদক ও পুরুলিয়া জেলা সভাপতি উমাকান্ত মাহাতোর নেতৃত্বে এদিন স্মারকলিপি দেন জেলার প্রাণী বন্ধু, প্রাণী সেবী ও প্রাণী মিত্রারা।

তাঁদের দাবি,

১) মাসে দশ হাজার টাকা সাম্মানিক ভাতা দিতে হবে।

২) ৬৫ বছর বয়স পর্যন্ত কাজের নিশ্চয়তা দিতে হবে।

৩) প্রভিডেন্ট ফান্ড, গ্যাচুয়িটি, পেনশনের আওতায় আনতে হবে।

৪) দশ লক্ষ টাকা জীবন বীমা দিতে হবে।

৫) কর্তব্যরত অবস্থায় মারা গেলে পরিবারের একজনকে কাজে নিয়োগ করতে হবে।

দেখুন ভিডিও-

উমাকান্ত মাহাতো জানান, রাজ্যে প্রাণীজাত দ্রব্যের চাহিদা আগের থেকে প্রায় ১০০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এই চাহিদা পুরণের জন্য আরও গুরুত্বপুর্ণ ভুমিকা নিতে হবে। উন্নত পরিকাঠামো, উন্নত গবেষণাগার যেমন প্রয়োজন ততোটাই প্রয়োজন লোকবল। প্রাণী সম্পদের বিকাশের কাজকে সুষ্ঠ ভাবে পরিচালনা করা ও গরীব মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ২৪ ঘন্টা পরিষেবা দেওয়ার কাজ করে চলেছেন রাজ্যের প্রায় ১৪ হাজার প্রাণী বন্ধু, প্রাণী সেবী ও প্রাণী মিত্রা। তাঁদের সংগঠন তৃণমূলের সঙ্গে যুক্ত।

উমাকান্ত মাহাতো আরও জানান, গবাদি পশুদের নানান অসুখের চিকিৎসা করে সুস্থ করে তুলছেন তাঁরা। মাত্র দেড় হাজার টাকা মাসে পান তাঁরা। বিধায়ক জানান, ৯ সেপ্টেম্বর তাঁদের দেওয়া স্মারকলিপি নবান্নে পাঠিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন বিধায়ক। রাজ্যের সব জেলার সব বিধায়ককে ইতিমধ্যেই ই-মেলের মাধ্যমে স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে। এদিন বান্দোয়ানের বিধায়কের হাতে সরাসরি স্মারকলিপির কপি দেওয়া হয়েছে। এভাবেই বাকি বিধায়কদের হাতেও সরাসরি স্মারকলিপি তুলে দেওয়া হবে।

দাবি পূরণ না হলে অনশনের হুমকি দিয়েছেন উমাকান্ত মাহাতো।

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: