কয়লাকাণ্ডে লালার প্রায় ১৬৬ কোটির সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল ইডি

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করে রাখুন বিভিন্ন আপডেট পাওয়ার জন্য।

দুর্গাপুর দর্পণ ডেস্ক, ৫ এপ্রিল, ২০২১: কয়লাকান্ডে সোমবার ফের নিজাম প্যালেসে সিবিআই জেরা করে অনুপ মাঝি ওরফে লালাকে। এর আগে তিন বার জেরা করা হয় তাকে। কিন্তু সে পর্যাপ্ত তথ্য দেয়নি বলে অভিযোগ। সোমবার তাই ফের তাকে জেরা করা হয়। এদিনই ইডি লালার প্রায় ১৬৬ কোটির সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করেছে বলে জানা যায়।

পশ্চিম বর্ধমানে একাধিক ইস্পাত ও স্পঞ্জ আয়রন কারখানায় লগ্নি ছিল লালার। ইসিএল থেকে যে কয়লা পাচার করা হতো তার একটা অংশ সেই কারখানাগুলিতে ব্যবহার হতো। কারখানার সম্পত্তিই বাজেয়াপ্ত করেছে ইডি। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে থাকা লালার অন্যান্য সম্পত্তিও ধাপে ধাপে বাজেয়াপ্ত করা হবে বলে খবর।

বেআইনি কয়লা খাদান থেকে কয়লা তুলে পাচারের অভিযোগ রয়েছে লালার বিরুদ্ধে। এই কাজে তাকে সাহায্য করেছে ইসিএল, সিআইএসএফ এবং রেল কর্মীদের একাংশ, এমনটাই অভিযোগ। তার এই সিন্ডিকেটের সঙ্গে যুক্ত রাজ্যের ‘প্রভাবশালী’ কয়েকজন। কয়লা পাচারের টাকা ঘুরপথে তাঁদের কাছে লালা পৌঁছে দিত বলে অভিযোগ। রাজ্যের শাসক দলের নেতৃত্বের একাংশের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার অভিযোগ রয়েছে লালার। পাচারের সঙ্গে নাম জড়িয়ে গিয়েছে তৃণমূলের যুব নেতা বিনয় মিশ্র এবং তাঁর ভাই বিকাশ মিশ্রের। ইতিমধ্যেই বিকাশকে ইডি গ্রেফতার করছে। তার ও লালার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। বিনয় মিশ্রের নামে রেড কর্নার নোটিস জারি করেছে সিবিআই। তার বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিসও জারি করা হয়েছে। অন্যদিকে তৃণমূলের অভিযোগ, বিধানসভা ভোটকে টার্গেট করেই সিবিআই কয়লাকান্ডে তৎপর হয়েছে।

কয়লাকাণ্ডে লালার গ্রেফতারি এড়ানোর জন্য সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন লালার আইনজীবী। সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দেয়, ৬ এপ্রিল পর্যন্ত লালাকে গ্রেফতার করা যাবে না। তবে লালাকে তদন্তের কাজে সহযোগিতা করতে হবে। ৬ এপ্রিল এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য্য করেছে সুপ্রিম কোর্ট। সামান্য মাছ ব্যবসায়ী থেকে কয়লা পাচার কান্ডের কিংপিন হয়ে ওঠা লালা শেষ পর্যন্ত হাজির হন নিজাম প্যালেসে। কারবার চালাতে কয়লা পাচারের বিপুল পরিমাণ অর্থ লালা কাকে কাকে দিত, তা জানতে লালাকে জেরা করছে সিবিআই। পুলিশ বা রাজনৈতিক নেতাদের কাকে কত মাসোহারা দিতে হত তা বের করতে চায় সিবিআই।

কিন্তু চার দফা জেরা করেও সন্তুষ্ট নন তদন্তকারীরা। লালার বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ তুলে এবার তাকে গ্রেফতারের কথা ভাবছে সিবিআই। সোমবার লালার সুরক্ষাকবচ সংক্রান্ত মামলার শুনানি রয়েছে সুপ্রিম কোর্টে। তখনই তাকে গ্রেফতারির আর্জি জানানো হবে। যাতে কয়লাপাচার মামলার অন্যতম প্রধান অভিযুক্তকে হেফাজতে নিয়ে তাকে জেরা করা যায়।

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: