ভারতরত্নের মৃত্যুতে শোকাহত দুর্গাপুর, এই শহরে এসেছিলেন বার বার

প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় প্রয়াত হলেন সোমবার বিকালে। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। ফুসফুসের সংক্রমণ ও অন্যান্য কিছু শারীরিক সমস্যা নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি।

কীর্ণাহারের সন্তান ভারতরত্ন প্রণব মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুতে সারা দেশের মতো শোকের ছায়া নেমেছে দুর্গাপুরেও। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সহ নানা রাজনৈতিক কর্মকান্ড ছাড়াও দুর্গাপুরে তিনি কখনও অর্থমন্ত্রী হিসাবে আয়কর ভবনের উদ্বোধনে, কখনও রাস্ট্রপতি হিসাবে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির সমাবর্তনে যোগ দিয়েছেন।

দুর্গাপুরের প্রবীণ জাতীয় শিক্ষক সুশীল ভট্টাচার্য বাংলা, হিন্দি ও ইংরাজি, তিন ভাষাতেই বই লিখেছেন প্রাক্তন রাস্ট্রপতিকে নিয়ে। সুশীলবাবুর দাদা এবং প্রাক্তন রাস্ট্রপতির দাদা বন্ধু ছিলেন। কলকাতায় এক ঘরে থাকতেন। সেই সুবাদেই প্রণববাবুর সঙ্গে যোগাযোগ গড়ে ওঠে সুশীলবাবুর। কখনও কীর্ণাহারে তাঁর গ্রামের বাড়িতে, কখনও পরিবারের সবাইকে নিয়ে রাস্ট্রপতি ভবনে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করেছেন। প্রতি বছর দুর্গাপুজোর নবমীতে সুশীলবাবু প্রাক্তন রাস্ট্রপতির গ্রামের বাড়ির পুজোয় যেতেন। এবারেও যাবেন বলে ঠিক ছিল। প্রণববাবুর মৃত্যুতে গভীর শোকপ্রকাশ করে তিনি বলেন, পরিবারের একজন ঘনিষ্ঠজনকে হারালাম।

তিনি কোভিড পজিটিভ ছিলেন। সেনার রিসার্চ অ্যান্ড রেফারাল হাসপাতাল সূত্রে এক বিবৃতি জারি করে সোমবার সকালে জানানো হয়, রবিবার থেকে প্রাক্তন রাস্ট্রপতির শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের একটি বিশেষ দল তাঁকে পর্যবেক্ষণ করছেন। তিনি গভীর কোমায় আচ্ছন্ন রয়েছেন। ভেন্টিলেশনে আছেন। বিকালে তাঁর ছেলে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় টুইট করে বাবার মৃত্যু সংবাদ জানান।

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: