a big dahlia flower

How to grow dahlias in pots. টবে ডালিয়া চাষ কিভাবে খুব সহজেই করতে পারবেন, তা নিয়েই এই প্রতিবেদন।শীতের মরসুমের জনপ্রিয় ফুলগুলির মধ্যে অন্যতম হল ডালিয়া। ডালিয়ার মাতৃভূমি মেক্সিকো। ১৮৫৭ সালে কলকাতার দ্য রয়্যাল এগ্রি-হর্টিকালচার সোসাইটি অফ ইন্ডিয়ার হাত ধরে ভারতে পা রাখে ডালিয়া। বাড়ির বাগানে বা ছাদে টবে শখ করে ডালিয়া লাগান অনেকে। আবার জমিতে বাণিজ্যিক ভাবে চাষ করে আয় করে থাকেন চাষীরা।dahlia plants

How to grow dahlias in pots. টবে ডালিয়া চাষ

ডালিয়া চাষের সময়

How to grow dahlias in pots. সাধারণত জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাসে ডালিয়া ফোটে। তাই নভেম্বরে কচি চারা টবে লাগাতে হবে। তবে বর্ষা পেরোলেই ডালিয়ার চারা রোপণ করা যেতে পারে। সেক্ষেত্রে নভেম্বর থেকেই ডালিয়া ফুল পাবেন। তবে বর্ষার জল যেন কোনও ভাবেই গাছে না লাগে। বর্ষা শেষ হলে তবেই ডালিয়া চাষ শুরু করতে হবে। তা না হলে গাছের ক্ষতি হবে। ফুল ভালো হবে না।

চারা কিভাবে তৈরি করবেন

কাটিং বা কলম করে ডালিয়ার চারা তৈরি করলে ফুল ভালো হয়। আবার গাছের গোড়ায় বা কন্দ থেকে যে চারা ডাল বের হয় সেই ডাল থেকেও চারা গাছ তৈরী করা যায়। এই ডাল কেটে বা কন্দ থেকে যে চারা গাছ বের হয় সেগুলিকে পরিস্কার বালির মধ্যে বসাতে হবে। দুবেলা জল দিতে হবে। ১০-১৫ দিনের মধ্যেই শিকড় বের হবে। এই চারা গাছ টব তৈরী করে বসালেই দারুণ ফুল হবে। তবে যাঁরা আগে ডালিয়া চাষ করেছেন তাঁরাই এত সহজে করতে পারবেন। তাই নতুন যাঁরা ফুল গাছ লাগাচ্ছেন তারা বরং নার্সারি থেকে চারা কিনে আনুন। লাল, বেগুনি, হালকা লাল, কমলা, হলুদ, সাদা, নানান রঙের ডালিয়া ফুল হয়। আপনার পছন্দ মত রঙের ফুল গাছ নার্সারি থেকে নিয়ে আসতে পারেন।

নিজের বাড়িকে কিভাবে কুঞ্জ বানিয়েছেন এক শিক্ষক, দেখুন সেই ভিডিও

টব কিভাবে তৈরি করবেন

ডালিয়া গাছের জন্য ১৫ থেকে ২৫ ইঞ্চির টব নিতে হবে। টবে গাছ প্রতিস্থাপনের আগে গাছের গোড়া সুস্থ রাখতে টবে মাটি কিভাবে ভরতে হবে তা জেনে নেওয়া ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। টবে ড্রেনেজের ব্যবস্থা করতে হবে। মানে, জল নিকাশি ব্যবস্থা। প্রত্যেক টবের নীচে ছিদ্র থাকে। এই ছিদ্রগুলির উপরে ঢেউ খেলানো ছোট তিন চারটি খোলাম কুচি রাখতে হবে। তার ওপরে ছোটো স্টোন চিপস্ বা ছোট নুড়ি দিতে হবে। এরপর বালি দিতে হবে এমন ভাবে যাতে নুড়ি পাথরগুলো আর দেখা না যায়। এরপর মাটি দিতে হবে। কারণ সরাসরি নুড়ির উপর মাটি দিলে পরবর্তীকালে নুড়ির মধ্যে মাটি আটকে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে জল মাটিতে জমে যাবে। এবং মাটিতে ফাঙ্গাস জন্মে গাছের ক্ষতি হবে।

মাটি কিভাবে তৈরি করবেন

ডালিয়ার জন্য হাল্কা মাটি ভালো। হাল্কা মাটি মানে হচ্ছে যে মাটিতে বালির ভাগ বেশি। অর্থাৎ যে মাটিতে জল জমে না। দুভাগ মাটির মধ্যে একভাগ বালি, একভাগ ভার্মি কম্পোস্ট (কেঁচো সার) বা গোবর সার বা পাতা পচা সার, ১০০ গ্রাম হাড়গুঁড়ো দিতে হবে। এর সঙ্গে এক ভাগ কোটোপিট বা কাঠের গুঁড়ো দিতে হবে। এবার সমস্ত উপাদান ভালো ভাবে মিশিয়ে টবে মাটি দিতে হবে। টবে মাটি ভরার সময় চেপে চেপে মাটি ভরতে হবে। টবের অর্ধেক মাটি ভর্তি করতে হবে। ডালিয়া অ্যাসিটিক মাটি পছন্দ করে। সে ক্ষেত্রে চার চামচ লেবুর রস মাটিতে দিলে ফুল ভালো হয়। লেবুর পরিবর্তে এক চামচ ভিনিগারও ব্যবহার করা যেতে পারে।

ডালিয়ার চারা কিভাবে টবে বসাবেন

নার্সারি থেকে আনা চারা প্লাস্টিকের প্যাকেটের মধ্যে মাটিতে থাকে। কাঁচি দিয়ে প্যাকেটটি সুন্দর করে কেটে মাটি সহ চারা গাছ তুলে টবের মাটিতে বসাতে হবে। আর যদি চারা গাছ ছোট টবে থাকে, তাহলে টবের উল্টো দিকে সামান্য টোকা দিয়ে দিয়ে চারা গাছ মাটি সহ বের করে নিতে হবে। এরপর চারা টবের মাটিতে বসাতে হবে। গাছ বসিয়ে টবের উপরে আবার কিছুটা মাটি ভরতে হবে। তবে টব পুরো মাটি দিয়ে ভরাট করলে হবে না। টবের কিনারা থেকে যেন ২ ইঞ্চি ফাঁকা থাকে। কারণ পরবর্তী কালে গাছে সার, জল দিতে সুবিধা হবে। চারা গাছ বসানো হয়ে গেলে ঝারি দিয়ে জল দিন। মনে রাখবেন, বিকাল বেলায় চারা রোপন করবেন।

গাছ বসানোর পরে টব রাখবেন কোথায়

ছোট চারা গাছ টবে প্রতিস্থাপনের পর দুদিন ছায়ায় তবে খোলামেলা জায়গায় রাখতে হবে। দুদিন পর এই গাছকে রাখতে হবে এমন জায়গায় যেখানে সাত আট ঘন্টা রোদ থাকে। যেহেতু ডালিয়া শীতের ফুল এবং রঙিন ফুল, তাই এই গাছে প্রচুর পরিমাণ রোদের দরকার। এবং, শিশিরও ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ ডালিয়া গাছের জন্য। তাই রোদ ও শিশির পাবে এমন খোলা মেলা জায়গায় গাছ রাখুন।

কতটা জল দেবেন

ডালিয়া গাছ খুব বেশি জল পছন্দ করে না। তাই বুঝে জল দিতে হবে। মাটি শুকিয়ে গেলে তবেই জল দিন। তাতে এমনও হতে পারে, চারা গাছের ক্ষেত্রে সপ্তাহে তিনদিন জল দিতে হল। আবার গাছ যখন বড় হবে, গাছে প্রতিদিনই জল দিতে হচ্ছে। তবে জল দেওয়ার সময় লক্ষ রাখবেন, মাটি ভিজে থাকলে কখনওই জল দেবেন না।

 গাছের খাবার কি দেবেন

ডালিয়া নাইট্রোজেন জাতীয় খাবার পছন্দ করলেও, নাইট্রোজেন জাতীয় খাবার বেশী দেওয়া যাবে না। কারণ নাইট্রোজেনের পরিমাণ বেশী হলে, গাছের বৃদ্ধি বেশী হবে, কিন্তু ফুল হবে না। তাই খুব কম পরিমাণে নাইট্রোজেন জাতীয় খাবার দিতে হবে। ৫-১০-১০ এনপিকে বা ১০-২০-২০ এনপিকে এই গাছে ব্যবহার করা যেতে পারে। ১৫ দিন অন্তর দিতে হবে। এছাড়া, সরিষার খোল ২০০ গ্রাম এক লিটার জলে দিয়ে পচতে দিতে হবে। সরিষার সঙ্গে ১০০ গ্রাম কুচো মাছ ও আধ কাপ নিম খোল দিতে হবে।  পচাতে হবে সাতদিন। আট দিনের দিন ২ চামচ ডিএপি দিয়ে আরও একদিন পচতে দিতে হবে। নয় দিনের দিন খোল পচা সারের সঙ্গে ৫ লিটার জল ভালো করে মিশিয়ে, মিশ্রণটি ছেঁকে নিতে হবে। এবার এক মগ করে প্রত্যেক গাছে দিতে হবে। এটা দশ দিন অন্তর দিতে হবে। এই সার দেওয়ার পরের দিন ডালিয়া গাছে জল না দেওয়াই ভালো। মাটি শুকিয়ে গেলে মাটির ওপরের অংশ খুঁড়ে আলগা করে দিন। তারপরের দিন ঝাঁঝরি দিয়ে জল দিন।

পোকামাকড়ের হাত থেকে কিভাবে গাছ বাঁচাবেন

এই গাছে শামুক, কেঁচো, পিঁপড়ে সহ নানান ধরণের পোকার উপদ্রব মাটিতে দেখা দেয়। গাছের খাবার তৈরীর সময় নিম খোল দিয়ে খাবার তৈরী করলে এই উপদ্রব থেকে বাঁচা যাবে। এছাড়াও গাছে কিছু পোকা আক্রমণ করে। ডায়মোথয়েড ৩০ শতাংশ এই কম্পোজিসনের কীটনাশক দিলে গাছে কোনও ছত্রাক বা পোকার উপদ্রব হবে না। এক সপ্তাহে একবার গাছে স্প্রে করতে হবে। এক লিটার জলে ২৫ ফোঁটা দিয়ে মিশ্রণ তৈরী করতে হবে। পোকা লাগলে তখন স্প্রে করব, এমনটা করলে কিন্তু হবে না। গাছ বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই স্প্রে করতে হবে কীটনাশক। তাতে গাছের ক্ষতি হবে না। বরং, গাছ ভালো থাকবে।

গাছ বড় হলে খুঁটিতে বেঁধে দিন

গাছ একটু বড় হলে খুঁটি দেওয়ার ব্যবস্থা করুন। কারণ এই গাছের কান্ড ভীষণ নরম। তাই জোরে হাওয়া দিলে ভেঙে যাতে পারে। তাই বাঁশ কেটে ২০ ইঞ্চির মাঝারি সরু খুঁটি তৈরী করুন। মাটির মধ্যে খুঁটির কিছুটা গুঁজে দিন। এর পর নারকেল দড়ি বা পাটের সুতো দিয়ে খুঁটির সঙ্গে গাছ বেঁধে দিন। তাহলে আর ভেঙে পড়ায় ভয় থাকবে না।

কখন ছাঁটতে হবে গাছ

বেশী ফুল পেতে হলে গাছের আগা ভেঙ্গে দিতে হবে। এর ফলে গাছ বেশ ঝোঁপালো ও গোলাকার হবে এবং অনেক ছোট ছোট ফুল হবে। কিন্তু যদি বড় ফুল পেতে হয় সেক্ষেত্রে একেবারে ভিন্ন পদ্ধতি। এক্ষেত্রে একটি ঊর্ধ্বমুখী সোজা শাখা ও ৪-৫ টি পার্শ্ব শাখা রাখতে হবে। বড় ফুল পেতে হলে গাছের কান্ডের আগার কুঁড়িটি রেখে অবশিষ্ট পার্শ্ব কুঁড়িগুলি ছেঁটে দেওয়া উচিত। বড় ফুল পেতে হলে কুঁড়ি আসার পর ১ ভাগ সিঙ্গল সুপার ফসফেট, ১ ভাগ ইউরিয়া, ৩ ভাগ মিউরেট অব পটাশ মিশিয়ে ২ চামচ পরিমাণে মিশ্রণ প্রত্যেক টবে দিতে হবে। সঙ্গে খোল পচা জল যেমন দেওয়া হচ্ছিল তেমনই দিতে হবে। তবে, পাপড়ি খুলতে শুরু করলে আর কোনও সার দেওয়ার দরকার নেই। আশা করি এতক্ষণে একটা ধারণা পেয়ে গিয়েছেন। How to grow dahlias in pots. বর্ষা পেরোলেই নেমে পড়ুন তাহলে।

আরও পড়ুন- কিভাবে সহজে টবে কাঠগোলাপ বড় করে তুলবেন

আরও পড়ুন- তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের বাড়ি গিয়ে জন্মদিন পালন যুবকের

By aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

2 thoughts on “How to grow dahlias in pots. কিভাবে খুব সহজে টবে ডালিয়া চাষ করবেন”

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: