Breaking News…নন্দীগ্রামে প্রার্থী হবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করে রাখুন বিভিন্ন আপডেট পাওয়ার জন্য।

দুর্গাপুর দর্পণ, মেদিনীপুরঃ নন্দীগ্রামের প্রার্থী হিসাবে নিজেকেই তুলে ধরলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুভেন্দু অধিকারির চ্যালেঞ্জের জবাবে, অধিকারি পরিবারের মোকাবিলায় এমনই রণনীতি নিলেন তৃণমূলনেত্রী। তাঁর এই সিদ্ধান্তের প্রভাব দুই মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রাম জেলার বাকি আসনগুলিতেও পড়বে বলে মনে করছে তৃণমূল।

শুভেন্দু অধিকারি তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকে মেদিনীপুরে কিছুটা যেন ‘কোনঠাসা’ হয়ে গিয়েছিল তৃণমূল। অধিকারি পরিবারের সঙ্গে গত কয়েকদিনে দূরত্ব আরও বাড়ে তৃণমূলের। পর পর বাক্যবাণে শুভেন্দু অধিকারি বিদ্ধ করেছেন তৃণমূল ও তৃণমূল নেত্রীকে। এমনকি এদিনের সভার আগে তৃণমূলনেত্রীর নামে ‘গো ব্যাক’ পোস্টারও পড়ে এলাকায়। এই পরিস্থিতিতে কিভাবে মেদিনীপুরে তৃণমূল ঘুরে দাঁড়াবে তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলেন দলের সাধারণ কর্মী-সমর্থকেরা।

সোমবার নন্দীগ্রামের সভা থেকে আবেগপ্রবণ হয়ে নন্দীগ্রাম আসনে নিজেকেই প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সিকে দিয়ে নিজের নাম অনুমোদনও করিয়ে নিলেন। প্রথমে তিনি বলেন, “যিনি সত্যিই আপনাদের কাছে পড়ে থেকে আপনাদের কাজ করবেন, তেমন প্রার্থী চাই নন্দীগ্রামে।” এরপরেই তিনি বলে ওঠেন,  “আমি যদি নন্দীগ্রামে দাঁড়াই তাহলে কেমন হয়! তবে আমাকে তো ২৯৪ টি আসনে লড়তে হবে। আপনাদের সেজন্য নন্দীগ্রামে আমার হয়ে কাজ করে দিতে হবে। তারপরে আমি বাকিটা দেখে নেব।”

দলনেত্রীর এই সিদ্ধান্ত দলীয় কর্মীদের মনোবল চাঙা করতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক ওয়াকিবহাল মহল। বিজেপি, শুভেন্দু অধিকারি এবং অধিকারি পরিবারের চ্যালেঞ্জের মোকাবিলায় দলনেত্রীর এভাবে ‘লিডিং ফ্রম দ্য ফ্রন্ট’ শুধু যে  দুই মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রামে সুফল বয়ে আনবে এমন নয়, সারা রাজ্যে বিরোধীদের কাছে এটা একটা কড়া বার্তা, এমনটাই মনে করছে তৃণমূল।

আরও পড়ুন- শুভেন্দুর সভায় যোগ দিলেন না কোনও হেভিওয়েট, স্বস্তিতে তৃণমূল

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: