প্রথম লড়াইয়ে সসম্মানে উতরে গেল টিম ইন্ডিয়া

নিউজিল্যান্ড সফরের অতীতের পরিসংখ্যান মোটেও আশাপ্রদ নয়। তাই, টিম ইন্ডিয়া যতই ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে প্রথম ম্যাচে পিছিয়ে পড়েও পরের দুই ম্যাচে দাপটের সঙ্গে লড়ে সিরিজ পকেটে পুড়ে নিক, নিউজিল্যান্ড সফর নিয়ে কিন্তু টিম ইন্ডিয়ার সমর্থকেরা সামান্য হলেও দুশ্চিন্তায় ছিলেন। কিন্তু ইডেন পার্কে প্রথম টি-২০ ম্যাচেই নিউজিল্যান্ডকে উড়িয়ে দিয়ে বিরাট-বাহিনী বোধ হয় জানিয়ে দিল, এবারের সফর আর পাঁচটা্ সফরের থেকে আলাদা।

© Twitter

এদিন টসে জিতে নিউজিল্যান্ডকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠান বিরাট। কিন্তু শুরু থেকেই ব্যাটে ঝড় তুলতে শুরু করে নিউজিল্যান্ড। শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেট হারিয়ে ২০৩ রান তোলে তারা। রস টেলর ২৭ বলে ৫৪ (নট আউট), কেন উইলিয়ামসন ২৬ বলে ৫১ এবং কলিন মনরোর ৪২ বলে ৫৯ রানের সুবাদে ভালো ইনিংস গড়ে নিউজিল্যান্ড। এদিন ছয় বছরে প্রথম হাফ সেঞ্চুরি পান টেলর। ১৫ ওভারে নিউজিল্যান্ডর রান ছিল ৩ উইকেটে ১৪৩। কিন্তু ১৬ তম ওভারে যুজবেন্দ্র চহাল ২২ রান দেন। যদিও তিনিই শেষ পর্যন্ত ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা কেন উইলিয়ামসনকে আউট করেন। কোহলির হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভেলিয়নে ফেরেন কিউয়ি অধিনায়ক। ভারতের হয়ে জসপ্রিত বুমরা, রবীন্দ্র জাদেজা, যুজবেন্দ্র চহাল, শার্দূল ঠাকুর ও শিভম দুবে, প্রত্যেকে একটি করে উইকেট নেন।

টিম ইন্ডিয়ার হয়ে ওপেন করতে নামেন যথারীতি রোহিত শর্মা ও কেএল রাহুল। প্রথম ওভারে ৪ রান ওঠে। দ্বিতীয় ওভারেই মাত্র ৭ রান করে আউট হয়ে যান রোহিত। এরপর রাহুলকে সঙ্গে নিয়ে ইনিংসের হাল ধরেন বিরাট। গড়ে ওভারে দশ রানের বেশি রান উঠতে থাকে। ৯ ওভারে ভারতের রান দাঁড়ায় ১ উইকেটে ১০৭। কিন্তু পরের ওভারে আউট হয়ে যান রাহুল। ২৭ বলে ৫৬ রান করেন তিনি। ১১ তম ওভারে আউট হন বিরাট। তিনি ৩২ বলে ৪৫ রান করেন। তখনও জয়ের জন্য দরকার ৮২ রান। ১৩ ওভার ২ বলে মাত্র ৯ রান করে আউট হয়ে যান শিভম দুবে। ১৫ ওভারে ভারতের রান দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ১৫১। তারপর থেকে শ্রেয়স আইয়ার ও মনীশ পান্ডে ইনিংস টানতে থাকেন। ১৮ ওভারে পর পর দুই বলে ছয় ও চার মারেন শ্রেয়স। ১৯ ওভারের শেষবলে ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচ শেষ করে দেন শ্রেয়স। এক ওভার বাকি থাকতেই জয় পেয়ে যায় টিম ইন্ডিয়া। শ্রেয়সের সংগ্রহ ২৯ বলে ৫৮ রান। ১৪ রানে অপরাজিত থেকে যান মনীশ।

ম্যাচের সেরা হন শ্রেয়স। এদিনের জয়ের সুবাদে ৫ ম্যাচের সিরিজ ১-০ তে এগিয়ে গেল টিম ইন্ডিয়া। রোহিত আউট হওয়ার পরে রাহুল ও বিরাট ইনিংসের ভিত তৈরি করেন। কিন্তু তারপরেও অনেক কাজ বাকি ছিল। মিডল অর্ডার যেভাবে সেই চাপটা সাবলীলভাবে সামলে দিল তাতে দ্বিতীয় ম্যাচের আগে বেশ ফুরফুরে থাকতে পারবে বিরাট-বাহিনী।

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: