গ্লোবাল ওয়ার্মিংয়ে সাইবেরিয়ার বরফ গলছে। উদ্ধার হচ্ছে হাজার হাজার বছর ধরে বরফের নীচে সংরক্ষিত থাকা বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া লোমশ ম্যামথ, গন্ডার, কুকুরছানা এবং গুহা সিংহের বাচ্চা। এবার সেখান থেকে পাওয়া গেল তুষার যুগে বিলুপ্ত হওয়া প্রায় অক্ষত এক প্রাপ্তবয়স্ক গুহা ভাল্লুকের দেহ। বিজ্ঞানীদের প্রাথমিক বিশ্লেষণ অনুযায়ী, যা প্রায় সাড়ে ৩৯ হাজার বছরের পুরনো।

গুহা ভাল্লুক (Ursus spelaeus) একটি প্রাগৈতিহাসিক প্রজাতি বা উপ-প্রজাতি যা মধ্য ও শেষ প্লিইস্টোসিন পিরিয়ডে ইউরেশিয়ায় বসবাস করত এবং প্রায় ১৫ হাজার বছর আগে বিলুপ্ত হয়ে যায়। রাশিয়ার সাইবেরিয়ার নর্থ ইস্টার্ন ফেডারেল ইউনিভার্সিটি (এনএএফইউ) সূত্রে জানা গিয়েছে, বিশ্বে প্রথম বারের মতো সম্প্রতি একটি প্রাপ্তবয়স্ক গুহা ভাল্লুকের সংরক্ষণ করা দেহ উদ্ধার হয়েছে। এমনকি এটির নাক প্রায় অক্ষত রয়েছে। আর্কটিক দ্বীপে এটি পাওয়া গিয়েছে। এতদিন পর্যন্ত কেবল গুহা ভাল্লুকের খুলি হাড়ের সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল। নতুন এই আবিস্কারের ফলে বরফ যুগের হারিয়ে যাওয়া এই প্রাণীটির সম্পর্কে অনেক নতুন তথ্য জানা যাবে।

বিজ্ঞানী লেনা গ্রিগরিইভা জানিয়েছেন, প্রাপ্তবয়স্ক গুহা ভল্লুকের নরম টিস্যু সহ সম্পূর্ণ দেহাবশেষ পাওয়া গিয়েছে। বরফে সম্পূর্ণভাবে সংরক্ষিত। শরীরের ভিতরের অঙ্গ যথাস্থানে রয়েছে। এর নাক এখনও প্রায় অক্ষত। রাশিয়ার সাইবেরিয়ার নর্থ ইস্টার্ন ফেডারেল ইউনিভার্সিটি (এনএএফইউ) এর বিজ্ঞানীরা গুহা ভাল্লুকের দেহাবশেষ নিয়ে স্টাডি করতে শুরু করেছেন। এই গবেষণার ফলে বরফ যুগে বিলুপ্ত হওয়া লোমশ ম্যামথ এবং গন্ডার নিয়ে অনেক কিছু জানা যাবে। বিদেশী বিজ্ঞানীদেরও গবেষণায় যোগ দিতে আমন্ত্রণ জানানো হবে।

প্রাথমিক বিশ্লেষণ অনুযায়ী, উদ্ধার হওয়া গুহা ভাল্লুকটি ২২ হাজার থেকে সাড়ে ৩৯ হাজার বছরের পুরনো হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও গুহা ভাল্লুকের নির্দিষ্ট বয়স নির্ধারণের জন্য রেডিওকার্বন বিশ্লেষণ করা প্রয়োজন, বলছেন ইয়াকুস্কের ম্যামথ জাদুঘর পরীক্ষাগারের সিনিয়র গবেষক ম্যাক্সিম চেপ্রাসভ।

Photo Credit- from the archive of NEFU RIAEN

By aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: