প্লাস্টিকের সভ্যতা

ছেলেবেলায় স্কুলের পরীক্ষায় বিজ্ঞান সমাজের আশীর্বাদ না অভিশাপ মুখস্ত করেছি। বিজ্ঞানের অন্য দান প্লাস্টিক । বড় বড় যুক্তি তর্কে না গিয়ে চোখের সামনে সবচেয়ে বড় সমস্যা হল প্লাস্টিক।

সমুদ্রের ওপর জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব সম্পর্কে হুঁশিয়ারি দিয়ে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেস সম্প্রতি বলেছেন, সামুদ্রিক জলজ জীবন প্লাস্টিকের কারণে ভয়াবহ চাপের মুখে এসে দাঁড়িয়েছে। দেড়শো বছরে বিশ্বের জীবন্ত প্রবালের অর্ধেকই ধ্বংস হয়ে গিয়েছে। তিনি আরও জানিয়েছেন, গত চার দশকে সমুদ্রে প্লাস্টিক দূষণ বেড়েছে ১০ গুণ। গত ১৭ জুন (২০১৯) সমুদ্রের আইন বিষয়ক জাতিসংঘ সনদে অংশগ্রহণকারী সদস্য রাষ্ট্রগুলোর প্রতিনিধিদের ২৯ তম সভার উদ্বোধনী অধিবেশনে মহাসচিব দেশগুলিকে সতর্ক করে দেন। সামুদ্রিক এবং উপকূলীয় বাস্তুতন্ত্রের উপর এই অসহনীয় চাপ কমানোর জন্য যা যা করা দরকার তা করতে বলেন তিনি।

এবার আসি ভারত বর্ষের দিকে। এ’দেশ নদী প্রধান দেশ। আর নদীকে ঘিরে তৈরি হয়েছে সভ্যতা । নদ-নদী নালা ছোট নালা নর্দমা -নিকাশির সবচেয়ে বড় ব্যবস্থা। সবটাই প্রকৃতির তৈরি, প্রাকৃতিক । আধুনিকরণের সঙ্গে কাঁচা পাকা ড্রেন তৈরি করেছে মানুষ । সেটা হরপ্পা সভ্যতা হোক বা মিশরীয় সভ্যতা। বর্তমান সভ্যতার নর্দমা তৈরি করা হয়েছে ।শহর থেকে গ্রামে কাঁচা হোক পাকা হোক এই নর্দমা গুলি নিকাশের কাজে সবচেয়ে বড় ভূমিকা পালন করে ।সভ্যতা আধুনিকীকরণের সঙ্গে তৈরি হয় নানান সমস্যা। নিত্য প্রয়োজনে পাটের ব্যাগ ,নারকেলের দড়ির ব্যাগ ব্যবহার শেষ কবে দেখেছিলাম মনে নেই। আধুনিকতার হাত ধরে সভ্যতার নতুন সংযোজন প্লাস্টিক পলিথিন ইত্যাদি ইত্যাদি । আশির দশকের শুরুর দিক থেকে এই প্লাস্টিকের রমরমা শুরু হয় । এই ভয়ঙ্কর জিনিসের মধ্যে মানুষ খুঁজে পেল সুবিধা। ছোটবেলায় ঠাকুর দাদা কে দেখতাম শালপাতায় মাছ মরে বাজার থেকে কিনে নিয়ে আসতে । হঠাৎ সেই শাল পাতার বদলে সবার হাতে প্লাস্টিকের পলিথিনে ছেয়ে গেল। সবজি বাজার হোক বা মুদিখানার দোকান বাড়ি ফেরার সময,় সবার হাতেই পলিথিনের ব্যাগ নইলে লাইলন এর ব্যাগ। এমনটি বৃহস্পতিবারে এমনকি বৃহস্পতি বারে লক্ষ্মী পুজার সময় পান কলা কিনতে গেলেও বাড়ি ফিরছি এই প্লাস্টিক কে সঙ্গী করে । এই সর্বক্ষণের সঙ্গী টি এখন সমাজের অভিশাপ হয়ে উঠেছে ।বন্ধু কি করে অভিশাপে পরিণত হল? আসলে সে যে কোন ও দিন ই বন্ধু ছিলনা । নিজের সুবিধার্থে তাকে বন্ধু তে পরিণত করেছে মাত্র।

পলিথিন তৈরীতে এর কোন গুণমান নির্দিষ্ট করা নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়নি । ফলে সবচেয়ে কত কম দামে প্লাস্টিক পলিথিন তৈরি করা যায়, ব্যবসায়ীরা সেটাই লক্ষ্য রেখেছে। কম দামে বেশি লাভ । ক্ষতি হচ্ছে সমাজের। ব্যবহার তো বাড়ছে কিন্তু কিভাবে এই প্লাস্টিকের পলিথিন ব্যবহার কমবে? কুড়ি বছর ধরে এই প্লাস্টিক ব্যবহার করে বিভিন্ন জায়গায় জমতে শুরু করেছে । এই বস্তুটি এই বস্তু মাটির সঙ্গে মেশে না । সমস্যা হলো শুরু হলো একটু একটু করে । পুড়িয়ে দিলে বিষাক্ত গ্যাস হয়ে মিশে যায় বাতাসের সঙ্গে। যা আদতে সেই পরিবেশের ক্ষতি । রাসায়নিক পদার্থটির উৎপন্ন হয় সেটাও, মাটিতে মিশে ক্ষতি করে ।মানুষের টনক যখন নামলো ততদিনে সমুদ্রের তলায় জমেছে প্লাস্টিকের স্তুপ । পাটের ব্যাগে ফ্যাশন করে এদিক ওদিক নিয়ে যাওয়া যায় , কিন্তু বাজার গেলে নাকি প্লাস্টিকের ব্যাগ কিংবা পলিথিন ব্যাগের বিরোধী প্রচার টেলিভিশন, রেডিও সংবাদ মাধ্যম শুরু হল ।

নদী থাকলেই বন্যা হবে ।পশ্চিমবঙ্গে বহুবার বন্যা হয়েছে। প্রধান কারণ ছিল অতিবৃষ্টি। কিন্তু ২০১৭ সালে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন শহরের বিস্তীর্ণ এলাকা জলমগ্ন হল প্লাস্টিক আর পলিথিনের জন্য। নদী সংলগ্ন এলাকায় যেখানে সাধারণত বন্যা হত সে জায়গা সব খটখটে। বন্যা হল শহরের ভিতরে। কেন এই প্লাবন, তা খুঁটিয়ে দেখতে গিয়ে দেখা গেল- সেই প্লাস্টিক। নর্দমা নিয়মিত পরিষ্কার হলেও জমে রয়েছে প্লাস্টিকের স্তুপ। প্রাকৃতিকভাবে সব শহরে একটি বড় নালা বা স্রোত থাকে, যা দিয়ে শহরের জল বয়ে গিয়ে বড় নদীতে পড়ে। এই প্রধান নালা গুলি বেশিরভাগ অংশ বুঝে গিয়েছে প্লাস্টিকে।


মানুষ চক্ষুলজ্জার ভুলে আড়ালে টুক করে গিয়ে প্লাস্টিক ফেলে দিচ্ছে সামনের নালাটি তে। এতে নিজের বাড়ির আবর্জনা পরিষ্কার হল কিন্তু পরিবেশে নষ্ট হয়। সেটাও দেখার দায়িত্ব তো আমাদের । জলের তলায় পড়ছে আর কোথাও না কোথাও ম্যানহোলে ঢুকে গিয়ে আটকে পড়ছে । বড় নালাতে গিয়েও পর্যন্ত সেখানে গিয়েও দিনের পর দিন জমতে শুরু করছে। ফলে নালার পরিসর কমছে।

যে দ্রুততার সঙ্গে বড় নালায় গিয়ে জল পড়তো তার চেয়ে ধীর গতিতে যাচ্ছে। নিয়ম করে নালা পরিষ্কার করা হলেও মানুষও যেন নিয়ম করে তাতে প্লাস্টিক ফেলছে এবং বন্ধ হচ্ছে নালার মুখ । পাড়ার লোকের অভিযোগ, পরিস্কার হয় না বলেই জল জমছে কিন্তু খোঁজ নিলে দেখা যাবে যে লোকটি অভিযোগ করছেন তিনিই প্লাস্টিকের বড় প্যাকেটে ভরে বাড়ির সারাদিনের আবর্জনা ফেলে দিলেন নালীতে, রাতের অন্ধকারে । সব শহরেই প্লাস্টিকের ব্যবহার নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে । মানুষ এখনই সচেতন নাহলে এই প্লাস্টিক সভ্যতার জন্য ধ্বংসের কারণ ডেকে নিয়ে আসবে, সেটা সবাই জানেন। তবু যেন সব জেনেও না জানার ভান করে দিন কাটছে আমাদের।

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: