মনোনয়ন ঘিরে তৃণমূল-বিজেপির অশান্তি দুর্গাপুরে, সামাল দিল পুলিশ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করে রাখুন বিভিন্ন আপডেট পাওয়ার জন্য।

দুর্গাপুর দর্পণ ডেস্ক, ৫ এপ্রিল ২০২১ঃ সোমবার দুর্গাপুরের মহকুমা শাসকের দফতরে মনোনয়ন জমা দিলেন বিজেপির চারজন প্রার্থী এবং তৃণমূলের তিনজন প্রার্থী। সামান্য সময়ের জন্য দু-পক্ষের মধ্যে বচসা থেকে হাতাহাতির উপক্রম দেখা দেয়। স্লোগান, পাল্টা স্লোগানে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে দুর্গাপুর মহকুমা শাসকের কার্য্যালয় চত্বর। পুলিশ তৃণমূলের কর্মী সমর্থকদের একদিকে সরিয়ে নিয়ে যায়। বড়সড় অশান্তি এড়ানো যায়।

সোমবার একই দিনে তৃণমূল-বিজেপির মনোনয়ন ঘিরে তটস্থ ছিল পুলিশ-প্রশাসন। কড়া নিরাপত্তা বলয়ে মুড়ে ফেলা হয় দুর্গাপুরের সিটি সেন্টারের মহকুমা শাসকের দফতরের আশপাশ। বিনা পরীক্ষায় মাছিও গলতে দেয়নি পুলিশ। দুই দলের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে যাতে কোনও রকম গোলমাল না হয়, তা নিশ্চিত করাই ছিল চ্যালেঞ্জ পুলিশের। মহকুমা শাসকের দফতরে ঢোকার দু-দিকের রাস্তায় ব্যারিকেড করে দেওয়া হয়।

মনোনয়ন জমা দিলেন তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ মজুমদার

এদিন সকালেই দুর্গাপুর পূর্বের তৃণমূল প্রার্থী পুজো দেন ভিড়িঙ্গী কালী মন্দিরে। সকাল সাড়ে ১১ টা নাগাদ তিনি কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে মিছিল করে মহকুমা শাসকের দফতরে গিয়ে মনোনয়ন জমা দেন। কিছুক্ষণের মধ্যে বড় মিছিল নিয়ে পাণ্ডবেশ্বরের তৃণমূল প্রার্থী নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীও চলে আসেন। পরের দিকে মনোনয়ন জমা দেন দুর্গাপুর পশ্চিমের তৃণমূল প্রার্থী বিশ্বনাথ পাড়িয়াল।

এই সময়ে অনুগামীদের নিয়ে মনোনয়ন জমা দিতে আসেন রানিগঞ্জের বিজেপি প্রার্থী ডাঃ বিজন মুখোপাধ্যায়।   তখনও পাণ্ডবেশ্বরের তৃণমূল প্রার্থী নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর অনুগামীরা মহকুমা শাসকের কার্য্যালয় চত্বরে ছিলেন। বিজনবাবুর অনুগামীদের সঙ্গে নরেন্দ্রনাথবাবুর অনুগামীদের বচসা শুরু হয়।  স্লোগান, পাল্টা স্লোগানে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। দু-পক্ষই পরস্পরের দিকে তেড়ে যেতে থাকে। মাঝে পুলিশ ঢুকে আটকায়। তৃণমূল কর্মীদের পুলিশ ঠেলে একদিকে সরিয়ে দেয়। তার পরেও বেশ কিছুক্ষণ দু-পক্ষ এলাকা ছাড়েনি।

এদিন বিশাল মিছিল করে একসঙ্গে মনোনয়ন জমা দেন বিজেপির দুর্গাপুর পশ্চিমের প্রার্থী লক্ষ্মণ ঘোড়ুই, পাণ্ডবেশ্বরের বিজেপি প্রার্থী জিতেন্দ্র তিওয়ারি এবং দুর্গাপুর পূর্বের বিজেপি প্রার্থী কর্নেল দীপ্তাংশু চৌধুরী। তাঁরা আসার আগে মহকুমাশাসকের কার্য্যালয়ে আসেন মধ্যপ্রদেশের মন্ত্রী নরোত্তম মিশ্র। এছাড়াও আসেন ঝাড়খন্ডের একাধিক বিজেপি নেতা। কয়েকশো গাড়িতে করে এদিন এসেছিলেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকেরা। ডিজে বাজিয়ে উদ্দাম নৃত্যের সঙ্গে স্লোগান দিতে থাকেন তাঁরা।

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: