ঘরের কোণে শখের বাগান, চিকিৎসকের শখের বাগানে ভাটফুল থেকে ভ্যারেন্ডা

শর্মিষ্ঠা দাস পেশায় চিকিৎসক। শখে সাহিত্যিক, শিল্পী আবার পরিবেশপ্রেমীও।

ঘরের কোণে শখের বাগান, তাঁর বাড়ির সামনে ছোট্ট বাগান। এই ছোট্ট পরিসরে শুধুমাত্র উঁচু তলার বাগান সাজানোর গাছ নয়, তিনি কাছে টেনে নিয়েছেন বাংলার আটপৌরে গাছগুলিকে। বাগানে সেই সব গাছকে জায়গা করে দিয়েছেন।

সকলের কাছে জংলা গাছ হিসাবে পরিচিত, যেমন ভাটফুল, আকন্দ, ভ্যারেন্ডা। অথচ শর্মিষ্ঠা দাসের বাগানে সেগুলি মর্যাদার সঙ্গে স্থান পেয়েছে। তিনি বলেন, এগুলি আমার জীবনানন্দীয় গাছ। কবি হেলায় পড়ে থাকা গাছগুলোকে কবিতায় স্থান দিয়ে অমর করেছেন। শহরায়নের তান্ডবে দ্রুত হারিয়ে যাচ্ছে বাংলার এই গাছগুলি। তাই আমি এদের তুলে নিয়ে আসি আমার বাগানে।

হংসলতা

বাগানে গাঁদাল, থানকুনি, পুদিনা, লঙ্কা গাছ আছে। কারণ, হাতের কাছে ওষধি গাছ থাকা খুব জরুরী বলে মনে করেন তিনি। জবা, বেল ফুল, সবেদা, করমচা, চেরি, পেয়ারা, গন্ধরাজ ফুল, গন্ধরাজ লেবু, পান ইত্যাদি ফুল-ফলের গাছও রয়েছে। বাদ পরেনি বাসরলতা, বিরললতা, দোলনচাঁপা, উলোট চণ্ডাল, হংসলতা, স্বর্ণচাঁপার মতো তাঁর পছন্দের গাছ। নিজের বাড়িতে গাছ লাগিয়েই শান্ত থাকেনি শর্মিষ্ঠা দাস, দুর্গাপুর শহর সহ আশপাশের বহু স্কুলের বাগানে বড় হচ্ছে তাঁর দেওয়া আমলকি, সবেদা, জাম, আম ইত্যাদি নানান গাছ। শুধু গাছ লাগিয়েই তাঁর শান্তি নেই! সেই গাছের ইতিহাস জানা তাঁর অন্যতম নেশা। তা কোন শহরে কোন শতাব্দীতে বিশেষ কদর পেয়েছিল, সব তাঁর জানা চাই।

পানপাতা

তিনি আঁকতে ভালোবাসেন। চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ হিসাবে সরকারি হাসপাতালের কাজকর্ম, সংসার সামলে ছবি আঁকার ফুরসত পেতেন না। জল রঙের কাজ করলে ছবি শেষ না করে ওঠা যায় না। তেল রঙের কাজেও বহু সময় লাগে। তাই তিনি কোলাজ তৈরি করতে শুরু করেন। কোলাজে রীতিমতো নজর কাড়েন। কয়েক বছর আগে হাসপাতাল থেকে স্বেচ্ছাবসর নেওয়ার পরে অবশ্য দিনের অধিকাংশ সময়ের সঙ্গী হয়ে উঠেছে রঙ, তুলি।

মূলত ‘সারভাইভাল স্ট্রাটেজি’ বিষয়ক ছবিই ফুটে ওঠে তাঁর হাতে। তাছাড়া প্রকৃতি, নারী চরিত্রের দুঃখ, বেদনা, অত্যাচারের কথা বার বার ফিরে এসেছে তাঁর ছবিতে। ২০১৩ সালে প্রথমবার কলকাতায় গগনেন্দ্র আর্ট গ্যালারিতে প্রর্দশনী হয়। পরে কলকাতায় আইসিসিআর এর নন্দলাল বসু গ্যালারিতে ‘কলকাতা আর্ট ফেস্টিভ্যাল ও আন্তর্জাতিক চিত্রকলা ও ভাস্কর্য প্রদর্শনী’তে তাঁর আঁকা ‘গোল্ডেন মিথ’ ছবিটি সবার নজর কাড়ে। মিক্সড মিডিয়ায় আঁকা তাঁর পছন্দের। তাই তাঁর ছবিতে ধরা পড়েছে কখনও বাঁশি কখনও বা পেরেক।

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: