মুখ্যমন্ত্রীকে ছাপ্পা ভোটের মাস্টার বললেন সূর্যকান্ত মিশ্র, কড়া জবাব তৃণমূলের

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করে রাখুন বিভিন্ন আপডেট পাওয়ার জন্য।

দুর্গাপুর দর্পণ, দুর্গাপুর ১৬ এপ্রিল ২০২১: শুক্রবার সকালে দুর্গাপুরে রোড শো করলেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র। ভিড়িঙ্গী মোড় থেকে শুরু করে পদযাত্রা শেষ হয় বেনাচিতির পাঁচমাথার মোড়ে। তাঁর সঙ্গে ছিলেন দুর্গাপুর পূর্বের সিপিএম প্রার্থী আভাস রায়চৌধুরী এবং দুর্গাপুর পূর্বের কংগ্রেস প্রার্থী দেবেশ চক্রবর্তী।

এদিন সূর্যকান্ত মিশ্র তাঁর বক্তব্যে করোনা অতিমারি রুখতে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের ভূমিকার তুমুল সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, ‘‘রাজ্য ও কেন্দ্র, দুই সরকারই করোনা অতিমারি নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়েছে। দেশের সবথেকে খারাপ অবস্থা যে পাঁচটি রাজ্যের তার মধ্যেও নীচে রয়েছে আমাদের রাজ্য। টেস্টিং কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। টেস্ট না হলে বুঝবেন কি করে কে আক্রান্ত কে আক্রান্ত নন!’’

করোনার টিকা দেওয়ার বয়সের সীমা তুলে দিয়ে কমবয়েসীদেরও টিকা দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি। তিনি বলেন, ‘‘এখন কমবয়েসীদেরও করোনা হচ্ছে। তাছাড়া কোভিশিল্ড দেওয়া দরকার। সেখানে কোভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। কোভ্যাকসিন এখনও ট্রায়াল ফেজে রয়েছে।’’ তবে আটদফা নির্বাচনের জন্যই এই রাজ্যে করোনার প্রকোপ বেড়েছে তা মানতে চাননি তিনি। তিনি বলেন, ‘‘মহারাস্ট্রে কি নির্বাচন ছিল? শুরু তো হল মহারাস্ট্রে। এবং তার আগে ব্রিটেনে বা দক্ষিণ আফ্রিকায়। সেখানেও নির্বাচন ছিল না। সরকার যা ব্যবস্থা নেওয়ার তা নেয়নি। অব্যবস্থার ফলেই দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে।’’

এদিন তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে ছাপ্পা ভোটের মাস্টার বলে কটাক্ষ করেন। তিনি বলেন, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচনের দিন নন্দীগ্রামে দু’ঘন্টা একটা বুথে বসে থাকলেন। উনি কিচ্ছু করতে পারলেন না। একদিন উনি ভোট লুঠ করেছেন। এখন উনি বলছেন, যে আমার বুথে ছাপ্পা হচ্ছে। একদিন তো আপনিই ছাপ্পা ভোটের মাস্টার ছিলেন। এখন বিজেপি আপনাকেও ছাপিয়ে গিয়েছে।’’ তিনি চিকিৎসা করলে দু’দিনের মাথাতেই মুখ্যমন্ত্রী হাঁটতে পারতেন বলেও বিদ্রুপ করেন তিনি। তাঁর দাবি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে পরাস্ত করার পরে পরবর্তী লক্ষ্য, নরেন্দ্র মোদিকে দিল্লির মসনদ থেকে নামিয়ে আনা।

তৃণমূল ও বিজেপি, দুই পক্ষই কড়া সমালোচনা করেছে সূর্যকান্ত মিশ্রের বক্তব্যের। তৃণমূলের বক্তব্য, আর বুথ লুঠ করে ছাপ্পা ভোট সিপিএম দিত। রাজ্যের মানুষ ৩৪ বছরের বাম জমানা ভোলেননি । তাঁরা কেমন আছেন সেটা তাঁরা ভালো জানেন। তাঁরা একমাত্র ভরসা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই। অন্যদিকে বিজেপির বক্তব্য, বাম, কংগ্রেস দুই দলই আর এই রাজ্যে প্রাসঙ্গিক নয়। তাই সংযুক্ত মোর্চা ভোটের লড়াইয়েই নেই।

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন- 9434312482

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: