ফের স্বাস্থ্যসাথীর কামাল, হার্টের রোগী সুস্থ হলেন দুর্গাপুরে

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করে রাখুন বিভিন্ন আপডেট পাওয়ার জন্য। 

দুর্গাপুর দর্পণ, দুর্গাপুরঃ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সবার জন্য স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের সুবিধা নিয়ে রাজ্যের অনেকেই বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করিয়ে সুস্থ হয়ে উঠছেন। দুর্গাপুরের ২০ নম্বর ওয়ার্ডের শ্রীনগরপল্লির বাসিন্দা কালুকুমার পাল অন্যতম। স্বাস্থ্যসাথী কার্ড দিয়ে বিনা পয়সায় দুর্গাপুরের মিশন হাসপাতালে হার্টের চিকিৎসা করিয়েছেন তিনি। ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তথা ২ নম্বর বরো চেয়ারম্যান রমাপ্রসাদ হালদার বলেন, “বিরোধীরা স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে নানা অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সাধারণ মানুষ জানেন এই কার্ড কত কাজে আসছে।”

কালুকুমার পাল

কালুকুমারবাবু ফুটপাথে বসে সবজি, ফুলের চারা বিক্রি করেন। সামান্য রোজগার। মেয়ে কলেজে পড়ছে। দীর্ঘদিন ধরে তিনি হার্টের সমস্যায় ভুগছেন। ২০১২ সালে সাঁইবাবার আশ্রমে গিয়ে স্টেন্ট বসিয়ে আসেন। কিন্তু সম্প্রতি ফের শরীর খারাপ হতে থাকে। মিশন হাসপাতালে গিয়ে ডাঃ নাদিম আফরোজকে দেখান। চিকিৎসক জানিয়ে দেন, হার্টের অবস্থা ভালো নয়। বাইপাস সার্জারি করতে হতে পারে। কালুকুমারবাবুর আর্থিক অবস্থার কথা জানতে পেরে চিকিৎসক তাঁকে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড করিয়ে নেওয়ার পরামর্শ দেন।

আরও পড়ুন- ২৪ ঘন্টার মধ্যে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের ব্যবস্থা করে জখম যুবকের অস্ত্রোপচার দুর্গাপুরে

কালুকুমারবাবুকে জরুরি ভিত্তিতে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড করিয়ে দেওয়া হয়। সেই কার্ড নিয়ে ৫ ফেব্রুয়ারি মিশন হাসপাতালে ভর্তি হন। ৬ ফেব্রুয়ারি রাতে তাঁর অপারেশন হয়। স্টেন্ট বসানো হয়। তিনি বলেন, “শুধু স্বাস্থ্যসাথী কার্ড ছিল বলে আমার চিকিৎসা হল। তা না হলে চরম বিপাকে পড়তে হতো। তাঁর স্ত্রী রূপালীদেবী বলেন, “আমাদের মতো বহু গরীব মানুষের উপকার হচ্ছে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকায়। মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।”

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: