জিতেন্দ্র তিওয়ারির বিধায়ক কার্য্যালয় হয়ে গেল তৃণমূলের পার্টি অফিস

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করে রাখুন বিভিন্ন আপডেট পাওয়ার জন্য।

দুর্গাপুর দর্পণ, পাণ্ডবেশ্বরঃ ১৭ ডিসেম্বর পাণ্ডবেশ্বরের হরিপুরে জিতেন্দ্র তিওয়ারির বিধায়ক কার্য্যালয় দখল করে নিয়েছিলেন ব্লক সভাপতি নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী ও তাঁর অনুগামীরা। কিন্তু তা স্থায়ী হয়নি। একদিন পরেই সরে যেতে হয়েছিল। মঙ্গলবার ফের সেই কার্য্যালয়ের দখল নিলেন নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী ও তাঁর অনুগামীরা। তবে এবার পাকাপাকিভাবে!

১৭ ডিসেম্বর জিতেন্দ্র তিওয়ারি আসানসোল পুরসভার প্রশাসকের পদ থেকে সরে যান। কিছুক্ষণের মধ্যেই তাঁর হরিপুরের বিধায়ক কার্য্যালয়ের দখল নেয় পাণ্ডবেশ্বরে তাঁর বিরোধী গোষ্ঠী নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর অনুগামীরা। এরপরেই জিতেন্দ্র তিওয়ারি তৃণমূলের জেলা সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দেন। তিনি বলে দেন, দলই যখন চাইছে না তখন আর থাকার মানে হয় না। কিছুক্ষণের মধ্যেই রানিগঞ্জ টিডিবি কলেজে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের অফিসে তাঁর ছবিতে কালি লেপে দেওয়ার ভিডিও ভাইরাল হয়।

১৮ ডিসেম্বর আসানসোল, পাণ্ডবেশ্বরে সারাদিন জিতেন্দ্র তিওয়ারির বিরুদ্ধে মিছিল করে উল্লাস প্রকাশ করেন তৃণমূলের নীচুতলার কর্মীরা। তাঁর ছবিতে জুতোর মালা পরানো হয়, কালি লেপা হয় এমনকি কুশপুত্তলিকাও দাহ করা হয়। তাঁর নামের ফলক উপড়ে ফেলা হয়। তাঁর ছবি, বোর্ড কার্য্যালয়ের বাইরে ছুড়ে ফেলা হয়।  তাঁর বিরোধী গোষ্ঠীর নেতারা সারাদিন ধরে কার্যত জিতেন্দ্র বিরোধী প্রচার চালিয়ে যান। তবে সন্ধ্যায় বদলে যায় পরিস্থিতি। মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে বৈঠক শেষে জিতেন্দ্র জানিয়ে দেন, তৃণমূলেই থাকছেন। তাঁর বিধায়ক কার্য্যালয়ের দখল নিয়ে নেন তাঁর অনুগামীরা। পিছু হঠতে হয় নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর অনুগামীদের।

তবে মঙ্গলবার জিতেন্দ্র তিওয়ারি বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরে আর সে পরিস্থিতি রইল না। পাকাপাকিভাবে বিধায়ক কার্য্যালয় চলে গেল নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর অনুগামীদের দখলে। সেটি হয়ে গেল তৃণমূলের পার্টি অফিস।

https://durgapur24x7.com/jitendra-tiwari-finally-joins-bjp/

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: