পরিবার সনাক্ত করতে আসছে না, মহকুমা হাসপাতালের মর্গে জমছে দেহ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করে রাখুন বিভিন্ন আপডেট পাওয়ার জন্য।দুর্গাপুর দর্পণ, দুর্গাপুর, ১৩ মে ২০২১: করোনায় মৃতদের দেহ সনাক্ত করতে আসছেন না পরিবারের লোকজন। এর ফলে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালের মর্গে জমছে মৃতদেহ। এমনিতেই জায়গা নেই। তার উপর দিন দিন সংখ্যা বাড়তে থাকায় দেহে পচন ধরে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে বলে অভিযোগ। দুর্গন্ধের চোটে  ময়নাতদন্ত করতে আসা চিসিৎসক ও কর্মীরা দুর্ভোগে পড়ছেন। অবিলম্বে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নিলে কাজ করাই দূরহ হয়ে উঠবে।

করোনায় মৃতের দেহ দাহ করার আগে পরিবারের অনুমতি নিতে হয়। তবেই দাহ করার সরকারি ছাড়পত্র মেলে। অথচ হাসপাতালের মর্গে কয়েকদিন ধরে প্রায় ১০ টি দেহ পড়ে ছিল শুধু পরিবারের লোকজন সনাক্ত করতে আসেননি বলে। এখনও প্রায় ৫ টি দেহ পড়ে রয়েছে মর্গে কয়েকদিন ধরে।  মৃতদেহে পচন ধরে যাচ্ছে মর্গের এসি ঠিকমতো না চলায়।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হলে সমস্যা হচ্ছে না। কারণ, সেক্ষেত্রে বাড়ির লোকের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ থাকছে হাসপাতালের।  কিন্তু যাঁদের বাড়িতে বা হাসপাতালে আনার সময় গাড়িতে মৃত্যু হচ্ছে, তাঁদের ক্ষেত্রে সনাক্তকরণের সমস্যা হচ্ছে।  দেহ সনাক্ত করতে তাঁদের পরিবারের লোকজন আসছেন না।

কেন এই পরিস্থিতি? করোনায় পুরো পরিবার আক্রান্ত থাকলে তাঁরা বাড়ি থেকে বেরোতে পারছেন না। ফলে হাসপাতাল আনার পথে কারওর মৃত্যু হলে সেই দেহ সনাক্ত করতে আসার কেউ থাকছেন না। এই সমস্যা থেকে বের হওয়ার একটা উপায় ঠিক করা হচ্ছে। যে সব পরিবার আসতে পারছে না, তারা মোবাইলে এসএমএস করে এনওসি দিলেও দাহ করার জন্য সরকারি ছাড়পত্র দেওয়া হবে বলে ঠিক করা হচ্ছে।

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: