বিশ্বের প্রথম থ্রিডি প্রিন্টেড বিশ্বকর্মার মূর্তি গড়েছেন এনআইটি-র প্রফেসর

দুর্গাপুরের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির (এনআইটি) মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রফেসর শিবেন্দুশেখর রায়। থ্রিডি প্রিন্টেড বিশ্বকর্মা মূর্তি গড়েছেন তিনি। এর আগে আর কেউ তা বানাননি বলে জানিয়েছেন তিনি। কিছুদিন আগে তিনি থ্রিডি প্রিন্টেড মাস্ক-ও বানিয়েছেন।

প্রফেসর শিবেন্দুশেখর রায় এর ছবি
প্রফেসর শিবেন্দুশেখর রায়

শিবেন্দুশেখর রায় জানিয়েছেন,  থ্রিডি প্রিন্টিং হল এক ধরণের ম্যানুফ্যাকচারিং টেকনোলজি। যা দিয়ে নানা ধরণের ইঞ্জিনিয়ারিং কমপোনেন্ট বানানো হয়। এই টেকনোলজি ব্যবহার করা হয় দাঁত, হাড়ের চিকিৎসায়, জুয়েলারি তৈরিতে। বিদেশে আর্টিফিসিয়াল অর্গানও বানানো হয়। এমনকি এই টেকনোলজি ব্যবহার করে চিন, মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলিতে বাড়ি নির্মাণ-ও করা হচ্ছে।

তিনি জানান, প্রথমে থ্রিডি ক্যাড মডেলের মাধ্যমে নকশা বা ডিজাইনটি বানাতে হয়। এরপর সেই মডেলে লেয়ার ধরে ধরে মূর্তি গড়ার সামগ্রী দিতে হয়।  তিনি প্রথমে বিশ্বকর্মা মূর্তির নকশা বানান। এরপর উপযুক্ত পদ্ধতি ও নির্মাণ সামগ্রীর সাহায্যে মূর্তি বানিয়ে ফেলেন। বিশ্বকর্মা মূর্তিটি বানাতে ঘন্টা চারেক সময় লেগেছে। তিনি বলেন, বড় কিছু বানাতে হলে সেই অনুপাতে সময় বেশি লাগবে।

থ্রি ডি প্রিন্টেড মাস্ক এর ছবি
থ্রি ডি প্রিন্টেড মাস্ক

এর আগে তিনি থ্রিডি প্রিন্টেড মাস্ক বানিয়েছেন। তিনি জানান, সাধারণ মানুষের জন্য নয়, করোনার বিরুদ্ধে ফ্রন্ট লাইন ওয়ার্কারদের কথা ভেবে থ্রিডি প্রিন্টেড মাস্ক বানানো হয়। নির্দিষ্ট সময় ব্যবহার করে ভিতরের ফিল্টার বদলে দেওয়া সম্ভব। বাজারের এন ৯৫ মাস্কের তুলনায় অনেক কম খরচে এই মাস্ক বানানো যায়। তবে এই মাস্ক নিয়ে পরীক্ষা-নীরিক্ষা এখনও চলছে বলে জানান তিনি।

aamarvlog

শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। আমার ব্লগ- হাবি জাবি নয়। যোগাযোগ- ফোন ও হোয়াটসঅ্যাপ- 9434312482 ই-মেইল- [email protected]

Feedback is highly appreciated...

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: